রাসুল (সাঃ)-এর এই ভবিষ্যতবাণী কি ১০০% মিলে যায় নি?

রাসুল (সাঃ) বলেছেন, সিগ্রই আমার উম্মতের কিছু লোক মূর্তিপূজা করবে এবং কিছু লোক মুরতিপুজারিদের সাথে মিশে যাবে। (সুনান ইবনে মাজাহ- ৩৯৫২)

দই ডান আগে দেখলাম হোলি খেলছে মানুষ……কয়েকটা মসুলমানদের সন্তানদেরও দেখলাম ঐ খানে..এই ধরনের কোনো উৎসব মসুলমানদের হতে পারে না .
আজকেই কি সেই দিন নয়? হিন্দুরা তাদের ধর্ম পালন করুক এতে তাদের স্বাধীনতা রয়েছে কিন্তু নতুন ডায়লগ বের হয়েছে- ধর্ম যার যার উৎসব সবার, বাহ! কি সুন্দর শ্লোগান, মহান স্রস্টাকে বাদ দিয়ে মূর্তির পুজা করা হচ্ছে সেখানে নাকি মুসলিম উৎসব করতে যাবে, এমন উৎসব করার চেয়ে মুসলিমের মৃত্যুও ভালো কারণ মারা গেলে দুনিয়াটা শেষ হলেও আখিরাতটা ঠিক থাকলো কিন্তু যেখানে শিরকে আকবার অর্থাৎ সবচেয়ে বড় শিরক হচ্ছে সেখানে মুসলিম যদি যায়, তাঁর কি আখিরাতেঁ আগুন ছাড়া আর কিছু থাকবে?

তারপর তো আমাদের নবীজি সিরিয়ার চলমান সহিংসতা নিয়ে ভবিষ্যৎবাণী দিয়ে গেছেন তাও মিলে গেছে

শাম দেশ সিরিয়া হচ্ছে পুরো পৃথিবীর প্রাণ ভোমরা, সিরিয়ার অশান্ত মানিই পুরো পৃথিবীর অশান্তি, প্রতি মহূর্তে মনে পড়ছে, বিশ্ব নবী রাসূল (সাঃ) এর নিচের ভবিষ্যবাণীটি…

ইবনুল মুসাইয়াব (রাঃ) বর্ণনা করেছেন।

তিনি বলেন, রাসূল (সাঃ) বলেছেন:
শাম দেশে সিরিয়ার ব্যাপক ফেতনা দেখা দিবে, যখন উক্ত দেশের কোন প্রান্তের ফেতনা একটু শান্ত হবে তখনই অন্য প্রান্ত উত্তপ্ত হয়ে উঠবে।”(( কিতাবুল আল-ফিতান: ৬৭৩.))
তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন:
খাদ্য গ্রহণকারীরা যেভাবে খাবারের পাত্রের চতুর্দিকে একত্র হয়, অচিরেই বিজাতিরা তোমাদের বিরুদ্ধে সেভাবে একত্রিত হবে। এক ব্যক্তি বললো, সেদিন আমাদের সংখ্যা কম হওয়ার কারণে কি এরুপ হবে? তিনি বললেন: তোমরা বরং সেদিন সংখ্যাগরিষ্ঠ হবে; কিন্তু তোমরা হবে প্লাবনের স্রোতে ভেসে যাওয়া আবর্জনার মত। আর আল্লহ্ তোমাদের শক্রদের অন্তর হতে তোমাদের পক্ষ হতে আতষ্ক দূর করে দিবেন, তিনি তোমাদের অন্তরে ভীরুতা ভরে দিবেন। এক ব্যক্তি বললো, হে আল্লাহর রাসূল! ‘আল-ওয়াহন কি? তিনি বললেন: দুনিয়ার মোহ এবং মৃত্যুকে অপছন্দ করা।”(( সুনানে আবু দাউদ: হাদীস নং- ৪২৯৭.))

আবু দারদা (রাঃ) বর্ণনা করেছেন।

রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেন:
যুদ্ধের দিন মুসলিমদের শিবির স্হাপন করা হবে “গূতা” নামক শহরে, যা #সিরিয়ার সর্বোত্তম শহর দামিশকের পাশে অবস্হিত।”(( সুনানে আবু দাউদ: হাদীস নং- ৪২৯৮.))

আজ_আমরা_সেই_পরিস্হিতির_মুখোমুখি।
ইয়া মহান আল্লাহ্! রাসিয়া সহ মালাউন আসাদ শয়তান সহকারে পৃথিবীর সকল জালেমদের কে ধ্বংস করে দিন এবং মজলুম সিরিয়াবাসীকে হেফাজত করুন..~হে পরাক্রমশালী আল্লাহ

One Reply to “রাসুল (সাঃ)-এর এই ভবিষ্যতবাণী কি ১০০% মিলে যায় নি?”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *