মাটন মানচুরিয়ান

উপকরণ: হাড় ছাড়া খাসির মাংস আধা কেজি, সয়াসস ২ টেবিল চামচ, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ বাটা ১ টেবিল চামচ, কর্নফ্লাওয়ার ২ টেবিল চামচ, স্বাদ লবণ আধা চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো, টমেটো সস ৪ টেবিল চামচ, অরিগেনো ১ চা-চামচ, পাপরিকা ১ চা-চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, পেঁয়াজ কুচি সিকি কাপ, তেল প্রয়োজনমতো।
প্রণালি: মাংস টুকরা করে সয়াসস মাখিয়ে দুই-তিন ঘণ্টা রেখে দিন। সব বাটা মসলা মেখে দুই ভাগ করে নিন। এক ভাগ মসলা মাংসে মেখে নিন। তাতে লবণ, স্বাদ লবণ, ২ টেবিল চামচ তেল, কর্নফ্লাওয়ার দিয়ে আরও একটু মেখে ১ ঘণ্টা রেখে দিন। এবার চুলায় সামান্য তেল গরম করে তিন-চারটি করে মাংসের টুকরা ভেজে তুলুন। অন্য পাত্রে ৪ টেবিল চামচ তেল গরম করে পেঁয়াজ ভাজুন, নরম হয়ে এলে বাকি বাটা মসলা দিয়ে কষিয়ে নিন। এতে টমেটো সস, ১ টেবিল চামচ সয়াসস, লবণ ও গোলমরিচ গুঁড়া দিয়ে আধা কাপ পানি দিন। পানি ফুটে উঠলে ভাজা মাংস দিয়ে দিন। ঝোল কমে এলে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস, অরিগেনো, পাপরিকা দিয়ে নামিয়ে নিন।

12006333_1020736091311318_2014117353765174172_n copy

বাড়িতেই তৈরী করুন খাসির আস্ত লেগ রোস্ট

উপকরণ:
খাসির আস্ত রান ১টি, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল-চামচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা ১ কাপ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ টেবিল-চামচ, জিরা ১ চা-চামচ, দারচিনি, এলাচ, লবঙ্গ, কালো গোলমরিচ ও তেজপাতা পছন্দ মতো, শুকনা মরিচ ৬টি, টকদই আধা কাপ, চিনি ১ চা-চামচ, জায়ফল-জয়ত্রী-পোস্তদানা একসঙ্গে বাটা ২ টেবিল-চামচ, দুধ দেড় কাপ, কেওড়াজল ১ টেবিল-চামচ, তেঁতুলের মাড় ১ টেবিল-চামচ, ঘি ২ টেবিল-চামচ, তেল আধা কাপ, চিনি ১ টেবিল-চামচ, লবণ প্রয়োজনমতো।

প্রণালী:
প্রথমে আস্ত রান কাঁটা চামচ দিয়ে কেঁচে নিয়ে পেঁয়াজ, রসুন আদা, জিরা, দারচিনি, তেজপাতা এলাচ ও লবঙ্গ, শুকনা মরিচ, গোলমরিচ, লবণ, টকদই, চিনি ও তেল দিয়ে মেরিনেট করে ১ ঘণ্টা রেখে দিন। পরিমাণ মতো পানি দিয়ে মশলাসহ রান সেদ্ধ করুন।
পেঁয়াজ বেরেস্তা, ঘি ও তেঁতুল বাদে দুধ, জায়ফল-জয়ত্রী-পোস্তদানাসহ ওপরের অন্য সব উপকরণ একসঙ্গে দিয়ে নাড়তে থাকুন। মশলা রানের গায়ে লেগে তেল উঠে এলে তেঁতুলের মাড় দিয়ে দিন। সব শেষে পেঁয়াজ বেরেস্তা ও ঘি দিয়ে নামিয়ে নিন দারুণ মজার জিভে পানি আনা খাসির আস্ত লেগ রোস্ট।পরোটার সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।

12122862_1026970997354494_407057915396801257_n copy

সুজির হালুয়া

উপকরণ : - 

*সুজি হাফ কাপ

* দুধ ৪ টেবিল চামচ

*পানি এক কাপ

*চিনি ১ টেবিল চামচ

* ঘি ১ টেবিল চামচ

শিরার জন্য: -

*চিনি হাফ কাপ

*পানি দেড় কাপ

*তেল (ভাজার জন্য)

প্রণালি: প্যানে পানি, চিনি, ঘি, এবং দুধ জ্বাল দিয়ে ফুটে উঠলে তাতে সুজি দিয়ে কাই করে নিন। এবার চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করে হাত দিয়ে ভালোভাবে মেখে চমচমের আকার করে নিন, ডুবো তেলে ভালমত ভেজে উঠিয়ে রাখুন। এবার একটি প্যানে চিনি ও পানি দিয়ে ১০মিনিট জ্বাল দিয়ে শিরা তৈরি করে নিন এবার শিরায় সুজির চমচমগুলো দিয়ে দিন। ৫ মিনিট চমচম গুলা শিরায় রান্না করুন এবং ৬০মিনিট চুলা বন্ধ করে শিরায় চুবিয়ে রাখুন। নরম হয়ে গেলে পরিবেশন করুন ইচ্ছা হলে ওপরে মাওয়া দেওয়া যেতে পারে।

12112172_1026971254021135_2650945434283214679_n copy

চাইনিজ স্পেশাল প্লেটার

এগ ফ্রাইড রাইস

উপকরন :
*পোলাউয়ের চালের ভাত ২ কাপ (৮0% সিদ্ধ)
*পেয়াজ কলি বা কচি বরবটি কুচি ১/৪  কাপ
*গাজর মিহি কুচি ১ টা(মাঝারি)
*টোমেটো কুচি ১ টা
*পিয়াজ কুচি ৩ টা
*কাচা মরিচ কুচি ৫-৬ টা
*রসুন বাটা ১ চা চামচ
*গোল মরিচ গুরা ১/৪ চা চামুচ
*সয়া সস ১ টেবিল চামচ
*টমেটো সস ১ টেবিল চামচ
*চিলি সস ১ টেবিল চামচ
*লবন আন্দাজ মত
*টেস্টিং সল্ট ১/২ চা চামচ
*চিনি ১/২ চা চামচ
*তেল ৫-৬ টেবিল চামচ
*ডিম ২ টা
প্রনালি :
*ডিম ২ টা ১ টেবিল চামচ পানি আর লবন দিয়ে ফেটে নিতে হবে।
*প্যান এ তেল দিয়ে ডিমটা ঝুরি করে ভেজে আলাদা পাত্রে উঠিয়ে রাখতে হবে।
*এবার ওই প্যানেই পেয়াজ, মরিচ, রসুন বাটা দিয়ে কষাতে হবে।
*এবার বরবটি /পেয়াজ কলি, গাজর কুচি, দিয়ে ৩ মিনিট ঢেকে দিয়ে, ৫-৭ মিনিট অল্প আচে ভাজতে হবে। তাহলে সিদ্ধ ও হয়ে যাবে।
*এর মাঝে সস গুলা ও লবন দিয়ে দিতে হবে।
*এবার টমেটো কুচি টা দিয়ে ২ মিনিট নাড়তে হবে।
*সবজিতে সিদ্ধ ভাত টা দিয়ে চুলার আচ বাড়িয়ে দিতে হবে।
*গোল মরিচ গুড়া আর চিনি টুকু ছড়িয়ে দিয়ে নাড়তে হবে।
*টেস্টিং সল্ট দিয়ে ২ মিনিট ভেজে লবন চেখে নামাতে হবে।
*ডিম ঝুরি মিলিয়ে দিতে হবে।
টিপস :
১.পোলাউয়ের চাল টা বেশি করে পানি দিয়ে শক্ত করে ভাত রাধতে হবে।হয়ে গেলে মাড় গেলে কলের পানি দিয়ে ধুয়ে বাতাসে ছড়িয়ে রাখতে হবে।পুরাপুরি ঠান্ডা হলে রাইস রাধলে ভাল।
২.আরও ভাল হয় যদি ভাত টা আগের রাতে রান্না করে নরমাল ফ্রিজে রাখা হয়। তাহলে রাইসটা রাঁধলে আরও ঝরঝরা হবে।
৩.চিনি দিলে ও রাইস টা ঝরঝরা হয়।
৪.রাইস টা চুলা থেকে নামিয়ে পানি ঝরিয়ে সামান্য তেল দিয়ে মেখে নিলে ও রাইস টা ঝরঝরা হয়।
৫.সবজি পছন্দ মত দেয়া যায়।তবে রেস্টুরেন্ট এ শুধু গাজর আর পেয়াজ কলি দেয়।
বানিয়ে জানাবেন কেমন হল 🙂

চাইনিজ ভেজিটেবল

উপকরন :
*পেপে পাতলা স্লাইস করা ১ ইনচি করে কাটা ১ কাপ ২৫০ গ্রাম)
*গাজর পাতলা স্লাইস কর ১ ইনচি করে কাটা ১ কাপ ২৫০ গ্রাম)
*বরবটি/পেয়াজ পাতা দেড় ইনচি করে কাটা ১/২ কাপ
*কাচা মরিচ কাটা ৫-৬ টা
*পেয়াজ ৩ টা (১ টা পেয়াজ ৪ টুকরা করে কোষ গুলা আলাদা করে নেয়া)
*আদা -রসুন বাটা ১/২ চা চামুচ
*গোল মরিচ গুড়া ১ চিমটি
*সয়া সস ১ চা চামচ
*ভিনেগার ২ চা চামচ
*চিনি ১ চা চামচ
*corn flour ১ টেবিল চামচ +১ কাপ নরমাল পানিতে গুলানো
*লবন আন্দাজমত
*টেস্টিং সল্ট সামান্য
*তেল ২ টেবিল চামচ
প্রনালি :
*পেপে টা পরিমান মত পানি আর লবন দিয়ে সিদ্ধ দিতে হবে।
*৫-৭ মিনিট পর গাজর, বরবটি এবং ১ চিমটি বেকিং সোডা দিয়ে সিদ্ধ করতে হবে।
*সিদ্ধ হলে নামিয়ে নিতে হবে।
*তবে খেয়াল রাখতে হবে যে সবজি যাতে গলে না যায়।
*এক্সট্রা পানি থাকলে ঝরিয়ে নিতে হবে।
*কড়াইতে তেল দিয়ে তাতে আদা -রসুন বাটা, লবন, পেয়াজ, কাচা মরিচ দিয়ে ভেজ়ে নিতে হবে ২ মিনিট।
*এবার সবজি গুলা দিয়ে, corn flour দিয়ে দিতে হবে।
*আচ টা বারিয়ে দিতে হবে।
*ভিনেগার, সয়া সস, চিনি, টেস্টিং সল্ট টা দিতে হবে।
*নেড়ে দিতে হবে কাঠের খুন্তি দিয়ে।
*সবজির পানি টা ঘন হয়ে এলে নামিয়ে নিতে হবে।
*সবজিটা নামিয়ে গোল মরিচ গুড়া দিয়ে দিতে হবে।
টিপস :
১.বেকিং সোডা দিয়ে সিদ্ধ করলে সবজির কালার ঠিক থাকে আর দ্রুত সিদ্ধ হয়।
২.কাঠের খুন্তি দিয়ে নাড়লে সব্জি ভাংবে না।
৩.চাইলে নামিয়ে ফ্রেশ ধনে পাতা ছড়িয়ে দেয়া যায়।

বিফ স্টিউ :

উপকরন :
*গরুর মাংস পাতলা লম্বা করে কাটা ২৫০ গ্রাম
*আদা -রসুন বাটা সামান্য
*corn flour ১/৪ কাপ
*ডিম ১ টা
*লাল মরিচ গুড়া ১/২ চা চামুচ
*গোল মরিচ গুড়া ১ চিমটি
*লেবুর রস /ভিনেগার ১ চা চামুচ
*সয়া সস ১ চা চামুচ
*টমেটো সস ১ চা চামুচ
*লবন আন্দাজ মত
*তেল ভাজার জন্যে
প্রনালি :
*তেল বাদে সব উপকরন দিয়ে মাংস মেরিনেট করে রাখতে হবে কমপক্ষে ৩ ঘন্টা।
*এবার কড়াইতে তেল গরম করে বিফ পিস গুলো এক্টা এক্টা করে তেলে ছাড়তে হবে।
*এভাবে ছাড়লে এক পিস আরেক পিসের সাথে লেগে যাবে না।
*১২-১৫ মিনিট সময় নিয়ে অল্প আছে মচমচা করে ভাজতে হবে।
*হয়ে গেলে নামিয়ে টিস্যু তে রাখতে হবে তেল ঝরাতে।
*এরপর গরম গরম পরিবেশন।

চাইনিজ শ্রেডেড বিফ :

Part :১
উপকরন:
*গরুর মাংশ ২৫০ গ্রাম লম্বা পাতলা করে কাটা
*কর্ন ফ্লাওয়ার ১/৪ কাপ
*আদা রসুন বাটা ১ চা চামচ
*ডিম ১ টি
*লাল মরিচ গুড়া ১/২ চা চামুচ
*লবন আন্দাজ মত
*তেল ভাজার জন্যে
*তেল বাদে সব উপকরন দিয়ে মাংস মেরিনেট করে রাখতে হবে কমপক্ষে ৩ ঘন্টা।
*এবার কড়াইতে তেল গরম করে বিফ পিস গুলো এক্টা এক্টা করে তেলে ছাড়তে হবে।
*এভাবে ছাড়লে এক পিস আরেক পিসের সাথে লেগে যাবে না।
*১২-১৫ মিনিট সময় নিয়ে অল্প আছে
মচমচা করে ভাজতে হবে।

Part :২
উপকরন :
*মাখন ২ টেবিল চামচ
*পেয়াজ ২ টা (৪ ফালি করে কোষ গুলো আলাদা করা)
*আদা জুলিয়ান কাট ১ চা চামুচ
*গাজর লম্বা পাতলা কুচি ১/৪ কাপ
*শুকনো মরিচ টালা ৩ টা (২ ভাগ করা)
*পেয়াজের কলি ১/৪ কাপ (১ ইনচি টুকরা করা)
*চিলি সস ১ টেবিল চামচ
*সয়া সস ১ চা চামচ
*চিনি ১ চা চামুচ
*টমেটো সস ২ টেবিল চামচ
*ভিনেগার/লেবুর রস ১ টেবিল চামচ
*corn flour ১ চা চামচ (১/২ কাপ পানিতে গুলানো)
*লবন আন্দাজ মত
*টেস্টিং সল্ট ১/২ চা চামুচ
প্রনালি :
*তেল গরম করে আদা কুচি, পেয়াজ দিয়ে ভেজ়ে পেয়াজের কলি, গাজর, শুকনো মরিচ, সব সস, ভিনেগার, লেবুর রস ও বিফ ভাজা দিয়ে ২ মিনিট নাড়তে হবে।
*এবার corn flour টুকু দিয়ে চুলার আচ বারিয়ে ৩-৪ মিনিট রান্না করে নামিয়ে নিতে হবে।
*চিনি দিয়ে দিতে হবে।
*মাখামাখা হলে নামিয়ে ফ্রাইড রাইস এর সাথে পরিবেশন করতে হবে।
বানিয়ে কমেন্ট করতে  ভুলবেন না কিন্তু।

12109217_149312875420792_9199818551464639537_n copy

By-Labanna islam

বলুসাই মিষ্টি রেসিপি

“বলুসাই মিষ্টি রেসিপি”

মাওয়া বানাতে লাগবে:-
গুড়ো দুধ, ঘি,সামান্য গোলাপ জল।
সব এক সাথে মেখে মাইক্রোওয়েভ এ ১-মিনিট বেক করে নিতে হবে, এই মাওআ গুড়ো করে ২-ভাগ করে নিতে হবে। এক ভাগ লাগবে মিষ্টি এর ভিতরের জন্য, আর এক ভাগ লাগবে মিষ্টি জরাতে।

শিরা:-
শিরার জন্য ২কাপ চিনি+২কাপ পানি জ্বাল দিয়ে শিরা বানাতে হবে।

মিষ্টি বানাতে:-
ময়দা ১-কাপ ,,বেকিং পাউডার ১/২-(আধা) চা চামচ, ঘি/তেল ২-টেবিল চামচ, টক দই ২-টেবিল চামচ।

সব এক সাথে খুব ভালো করে মেখে নিতে হবে। এই ময়ান টা ঢেকে ১ঘন্ট রেখে দিতে হবে।
এবার ছোটো ছোটো বল বানিয়ে তার মধ্যে অল্প অল্প মাওয়া ভরে মুখ বন্ধ করে হাত দিয়ে চাপ দিয়ে মিষ্টি বানাতে হবে। মিষ্টি বানানো হলে ডুবো তেলে অল্প আঁচে মিষ্টি গুলো বাদামি কালার করে ভেজে। নিতে হবেএবার আগে থেকে বানিয়ে রাখা সিরায় ভিজিয়ে রাখতে হবে ৫/৭ মিনিট। মিষ্টি গুলো বানানো হলে পরে একটা একটা করে বাকি মাওয়া দিয়ে জরিয়ে নিলেই মিষ্টি রেডি।

12107131_149331508752262_3919712622522962621_n copy

-জিনাফা  আফরিন –

পাঁচ-তারকা হোটেলের গোপন মশলার রেসিপি

পাঁচ-তারকা হোটেলের গোপন মশলার একটি ধনেপাতা পাউডার !!! (গুরুত্বপূর্ণ রেসিপি)। আজ আমি আপনাদের কাছে এমন একটা বিষয় শেয়ার করতে চাই, যা হয়তো অনেকে জানেন কিন্তু খুবই সামান্য। ধনেপাতার ব্যাপকতা নিয়ে আজ আলোচনা করবো। এই ধনেপাতা আমরা কি কাজে কি জন্য ব্যাবহার করি তা আমরা কম বেশি সবাই জানি। কিন্তু এই জানার মাঝে আরেকটু জানানোই আজকের মূল বিষয়। আমি গত শীতে ৫ কেজি ধনে পাতা কিনেছিলাম। এক সাথে এতো ধনেপাতা কিনার কারনে ২০ টাকা প্রতি কেজিতে কিনেছিলাম। দোকানদার হয়তো মনে মনে ভেবেছে আমি বিক্রির জন্য নিচ্ছি। যাই হোক। এতো ধনেপাতা কেনার কারন হল, এই ৫ কেজি ধনে পাতাকে রোদে শুকানো। শীতের রোদ। হালকা রোদ হলেও খুব তারাতারি শুকিয়েছিল। ১ সপ্তাহ শুকানোর পরে ধনেপাতার ওজন এসে দাঁড়ালো ৩ কেজির একটু বেশি। আরও ১ সপ্তাহ শুকানোর পরে ওজন আসলো ২.৫ কেজির কিছু বেশি। যাক আর শুকানোর প্রয়োজন হল না। ২ সপ্তাহে এতো শুকিয়েছি যে প্লাস্টিকের ডালায় নিয়ে হাতের তালু দিয়ে ঘোষে ঘোষে খুব সহজেই গুরা করে ফেলেছিলাম।
যেভাবে বানাবেনঃ –
কাঁচা সবুজ ধনেপাতার গোঁড়া কেটে ফেলেদিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন। তারপর ডালা কিংবা যে কোন কিছুর উপর রেখে রোদে, ফ্যানের বাতাশে, যে কোন ভাবে ২ সপ্তাহের মতো শুকাতে দিন। তারপর প্লাস্টিকের ডালা, কুলা ইত্যাদির উপর নিয়ে হাত দিয়ে ভালো করে পিশুন, চাইলে হামল-দস্তা কিংবা গুড়ো করার জন্য ব্লেন্ডার ব্যাবহার করতে পারেন। তারপর মুখ লাগানো যে কোন বয়মে রেখে ব্যাবহার করুন নিয়মিত।
খরচঃ- ২০-৪০ টাকা (প্রতি কেজি)।
সময়ঃ- ১/২ সপ্তাহ।
ব্যাবহারঃ- সারা বছর জুড়ে যে কোন তরকারী কিংবা খাবারে।
প্রশ্নঃ- কেন এই ধনেপাতা শুকিয়ে গুরা করলাম ?
উত্তরঃ- এই ধনেপাতা গুরা বা ধনেপাতা পাউডার খুব ই দামী, খাবারের স্বাদ বাড়ানো, সুন্ধর গন্ধ, সুন্দর রং এর জন্য এই ধনেপাতা পাউডারের তুলনা অসাধারণ। এর জন্য ধনেপাতা শুকিয়ে গুরা করলাম।
প্রশ্নঃ- এই ধনেপাতা পাউডার কোন কোন খাবারে দেওয়া যাবে?
উত্তরঃ- সাদা সেদ্ধ ভাত বাদে যে কোন তরকারি, গরু, মুরগী, মাছ, ফাস্ট ফুড, জাঙ্ক ফুড, সহ যে কোন খাবারে, এমন কি আলু ভর্তা, ডিম ভাজি ইত্যাদি তে খুব সহজে ব্যাবহার করা যায়।
প্রশ্নঃ- এতে কি কাঁচা গন্ধ আসবে খাবারে দিলে?
উত্তরঃ- না, উল্টা আরও খাবারের স্বাদ বাড়াবে। অন্য রকম একটা সুগন্ধ পাওয়া যাবে।
প্রশ্নঃ- কাঁচা ধনেপাতা বেশি খেলে গ্যাস্তিকের সমস্যা হয়, এতে ও কি একি সমস্যা হবে?
উত্তরঃ- না, এই ধনেপাতা পাউডার শুকিয়ে খেলে, হারবাল ঔষদের কাজ করে। ও আরও নানা রকম গুণী উপাদান আছে এই ধনেপাতা পাউডারে। মুখের দাগ দূর, বয়স্ক ভাব দূর, কিডনির অনেক উপকার সহ, অসাধারণ গুনের অধিকারী এই পাউডার।
প্রশ্নঃ- বাজারে এই ধনেপাতা পাউডার কিনতে গেলে কেমন দাম পড়বে ?
উত্তরঃ- ধনেপাতাকে শুকিয়ে গুড়ো করলে এর ৩ রকম আশ বের হয়। আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি। বাংলাদেশের ধনে পাতার (১) সম্পূর্ণ গুড়ো (২) মোটামুটি গুড়ো সহ ধনেপাতার ঢালপালা (৩) শুধু মাত্র ঢালপালা আর হালকা পাতা। এই ৩ টার ৩ রকম দাম। আমরা শো-ভাগ্যবান এই জন্য যে, ১ আর ২ নাম্বার টা খুব কম পাওয়া যায় আমাদের দেশে, কারন সব বাইরে চলে যায়। আমাদের বাংলাদেশে ৩ নাম্বার টা পাওয়া যায়। আর এই ৩ নাম্বার টা পাওয়া যায় আগরা, স্বপ্ন, মীনার মতো সুপার মার্কেট গুলোতে। মশলার দোকানে ও পাওয়া যেতে পারে। আর দাম ১০০ টাকা থেকে শুরু। আর পরিমাণ ৫০ গ্রাম থেকে শুরু। ইউরোপ, অ্যামেরিকাতে এর দাম কত, যারা ওখানে আছেন তারা খোঁজ নিয়ে ভালো বলতে পারবেন। আমি ইন্টারনেট থেকে যে দাম পেলাম, তার একটা হিসেব দিচ্ছি। ইউরোপের বিখ্যাতও ব্রান্ড টেস্ক (tesco) ১৬ গ্রাম ধনেপাতা পাউডারের দাম বাংলা টাকায় ৬২ টাকা। তাহলে এবার বসে বসে হিসাব করুন ১ কেজির দাম কত।
প্রশ্নঃ- বুঝলাম ধনেপাতা পাউডার সব দিক থেকে ভালো, কিন্তু আমি খাই না।
উত্তরঃ- আপনি যদি না খান তাহলে পিজ্জায় যে এই ধনেপাতা পাউডার দেয়। সেইটা খান কিভাবে ??
প্রশ্নঃ- আচ্ছা, কিভাবে তরকারি বা অন্য খাবারে এটি দেব ?
উত্তরঃ- হাতের আঙ্গুলের চিমটি খানেক আমি ব্যাবহার করি। আপনার তরকারির পরিমান বুঝে দিবেন। আমি আঙ্গুলের চিমটি খানিক দেই। আর হোটেলে পিজ্জায় দিতাম হাতের মুষ্টি করে। যাক, অনেক বক বক করলাম। কাজের কথায় আসি। আমি ঢাকা রিজেন্সি, হোটেল লা-মেরিডিয়ান ও ওয়েসটিনের মতো ৫ তারকা হোটেলে দেখেছি তারা পিজ্জায় এই ধনেপাতা পাউডার ব্যাবহার করে। আমি জানতাম না আগে এর এতো ব্যাপকতা। ওখান থেকেই জেনেছি। আমি পিজ্জায় ব্যাবহার করতাম তখন। সামনে শীত আসছে। তাই আপনাদের আগেই জানিয়ে দিলাম। খুব সহজে বাসায় করে ফেলুন এই ধনেপাতা পাউডার। এই পাউডার বয়মে রেখে মুখ লাগিয়ে অনেক অনেক দিন ব্যাবহার করা যায়। আমি নিজেই ব্যাবহার করছি। আর কিছুদিন পরেই ১ বছর হবে। এর গন্ধ আর স্বাদ আগের মতই অটুট। বাসায় তৈরি করুন, আর উপভোগ করুন অন্য রকম স্বাদ। আর একটা কথা মনে করিয়ে দিতে চাই, ম্যাগি, নর সুপে ও কিন্তু এই ধনেপাতা পাউডার ব্যাবহার করা হয়। সুপ বানানোর পরে নিশ্চয়ই লক্ষ্য করেছেন তাতে সবুজ ধনেপাতার কুচি দেখা যায়। এই একই প্রক্রিয়ায় ধনেপাতাকে শুকিয়ে পাউডার করে তারা তাদের অনেক খাবারে ব্যাবহার করে। এই ভাবে রোজমেরি পাউডার, আদা শুকিয়ে সেই আদার পাউডার, বানানো যায়। রোজমেরি পাউডারের স্বাদ, দাম আর গুনাগুন আরও অনেক বেশি। অন্য কোন সময় এই রোজমেরি নিয়ে আলোচনা করবো। সবাই ভালো আর সুস্থ থাকুন। ধন্যবাদ সবাইকে।

12074486_149320555420024_3216063577522161782_n copy

লিখেছেন-আহমেদ অপু

খাশির মাংসের স্পেশাল তেহারি

মাংস রান্না :-
উপকরন :-

  • খাশির মাংস – ১+১/২ কেজি
  • পেয়াজ + রসুন + আদা বাটা
  • জিরা + ধনিয়া বাটা
  • গরম মশলা + এলাচ বাটা
  • মরিচ বাটা – ১ চাচামচ
  • হলুদ – সামান্য
  • লবন
  • তেজপাতা – ৩-৪ টি
  • পেয়াজ কুচি – পরিমান মত

প্রনালি :-

 চুলায় মাংস, হলুদ , লবন , তেল তেজপাতা দিয়ে অল্প আচে মাংস কষাতে থাকুন । ১৫- ২০ মিনিট পরে মশলা দিয়ে দিন । এমন ভাবে মশলা দিবেন যাতে মাংশ মাখা মাখা হয় । কষাতে কষাতে অর্ধেকের বেশি সিদ্ধ হয়ে আসলে গরম পানি ঢেলে দিন । ৯০% সিদ্ধ হয়ে গেলেই নামিয়ে রাখুন।

তেহারি রান্না :-

উপকরন :-

  • মুগ ডাল – ১ পোয়া (ভাল করে ভেজে নেয়া )
  • পোলাও চাল – ১ কেজি + ১ পোয়া
  • বাদাম
  • কিশমিশ বাটা
  • জয়ফল
  • জয়েত্রি বাটা – ১ চাচামচ
  • এলাচ
  • দারুচিনি
  • তেজপাতা
  • গোলমরিচ
  • লবঙ্গ আস্ত কয়েকটি
  • পেয়াজ, রসুন, আদা বাটা সামান্য
  • লবন
  • তেল
  • ঘি – ২-৩ টেবিল চামচ
  • দই – ১ কাপ
  • সস – ২-৩ টেবিলচামচ
  • চিনি – সামান্য

প্রনালি :-
চাল আর ডাল এক সাথে ভাল করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন । তেল দিয়ে ভাল করে চাল ভেজে নিন। ভাজার শেষের দিকে পেয়াজ, রসুন,
আদা বাটা দিয়ে দিন। ভাল করে ঝরঝরা করে ভেজে নিন । ভাজার শেষের দিকে বাকি মশলা এবং মাংস দিয়ে ভাল করে ৪-৫ মিনিট
ভেজে নিন । এবার পরিমান মত গরম পানি দিয়ে সিদ্ধ করে নিন । ৬০-৬৫ সিদ্ধ হলেই চুলার আঁচ অল্প করে তলা ভারি তাওয়া দিয়ে তার উপরে হাড়ি বসিয়ে দমে দিন । ভাল করে ঢাকনা দিয়ে রাখুন । সাভিং ডিশে ঢালার আগে ঘি ছিটিয়ে দিন ।

টিপস :-

  • বেশি বিরিয়ানি , তেহারি বা
    পোলাও রান্না করলে সব সময় অল্প পানি
    দিবেন আর গরম পানি দিবেন তাহলে
    ভাতটা অনেক ঝরঝর হবে । বেশি পানি
    দিলে নিচের দিকে চাল নরম হয়ে
    যাবে ।
  • অল্প পানি দিয়ে অর্ধেক সিদ্ধ করে
    দমে বসিয়ে রাখবেন।
    পরিবেশন :-
    বেরেস্তা ছিটিয়ে ডিম অথবা কড়াই
    মুরগি দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন ।

12074503_141577106194369_7149130398029667134_n copy

“বিফ স্ট্রম্বলি” ….এক ধরনের ভাজ করা পিজ্জা

ইটালিয়ান টুইস্ট এর সাথে আমেরিকান ব্রেড! ভেতরে গরুর মাংস দেওয়া। ইচ্ছে হলে যেকোনো মাংস দেওয়া যায়। যেমন মজা তেমন সহজ বানানো…. 

রেসিপি:

# খামির এর জন্য উপকরণ  :-

  • ২কাপ ময়দা
  • ১টা ডিম
  • ২ চা চামচ ঈস্ট
  • ২ টেবিল চামচ গুরাদুধ
  • ১টেবিল চামচ চিনি
  • ৬ টেবিল চামচ তেল
  • হাফ কাপ দুধ(প্রয়োজনে আরো একটু
    লাগতে পারে)

# সস্ এর জন্য উপকরণ :-

  • ২টা মাঝারি আকারের টমাটো
  • ৪টেবিল চামচ টমেটো সস
  • হাফ টেবিল চামচ চিনি
  • ১টেবিল চামচ তেল
  • ১টেবিল চামচ রসুন কুচি

# কিমার জন্য উপকরণ :-

  • ১কাপ গরুর মাংসের কিমা
  • ১টেবিল চামচ আদা-রসুন বাটা
  • ১ চা চামচ লালমরিচ গুড়া
  • ১টেবিল চামচ সয়াসস
  • হাফ চা চামচ গরম মশলা গুড়া
  • পরিমান মত লবন
  • হাফ চা চামচ গোলমরিচ গুড়া
  • ২টেবিল চামচ তেল
  • হাফ কাপ পেয়াজ কুচি
  • ২টেবিল চামচ রসুন কুচি
  • হাফ কাপ হলুদ ও সবুজ ক্যাপ্সিকাম কুচি

# অন্যান্য উপকরণ :-

  • ঝুরি করা মোজারেলা ও চেডার চিজ
    (চেডার চিজ না দিলেও চলবে)
  • শুখনো অরিগানো


# পদ্ধতি :-

প্রথমেই পিজ্জার খামির বানিয়ে নিতে হবে। এর জন্য হালকা গরম দুধ এ চিনি মিশিয়ে এর ভেতর ঈস্ট মিশিয়ে নিন। এর পর ২কাপ ময়দা,১টা ডিম,২ টেবিল চামচ গুরাদুধ এর সাথে ভালো মত মিশিয়ে খুব নরম মোলায়েম খামির বানাতে হবে।এবার ৬ টেবিল চামচ তেল মিশিয়ে অনেকক্ষন মাখাতে হবে। খামির এর উপর তেল মাখিয়ে বড় বাটিতে রেখে চেপে ঢেকে গরম জায়গায় ২ ঘন্টা রেখে দিন। খামির ফুলে দিগুন হয়ে যাবে। এবার সস্ বানিয়ে নিন। ফুটন্ত গরম পানিতে টমেটো কয়েক মিনিট সেদ্ধ করে নিয়ে উপরের আবরণ তুলে ফেলে দিন।ব্লেন্ডারে দিয়ে টমাটো পেস্ট করে নিন। এবার তেল এ রসুন কুচি একটু ভেজে টমেটো পেস্ট দিয়ে দিন। কিছুক্ষন ভেজে টমেটো সস্ ও চিনি দিয়ে সস্ ঘন হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। কিমা রান্না করে নিন।মাংসের কিমা,আদা-রসুন বাটা,লালমরিচ গুড়া,গরম মশলা গুড়া,লবন,সয়সস,গোলমরিচ গুড়া একসাথে সেদ্ধ করুন। এবার পেয়াজ রসুন একসাথে তেলে হালকা ভেজে সেদ্ধ করা কিমা দিয়ে ভাজতে থাকুন। ক্যাপ্সিকাম কুচি দিয়ে দিন। ৩-৪ মিনিট পর চুলা বন্ধ করে দিন। অনেক ভাবেই কিমা রান্না করা যায়। নিজের পছন্দ মত কিমা রান্না করতে পারেন। ইচ্ছে হলে কাচা সবজিও দিতে পারেন। এবার পিজ্জার খামির টাকে দুই ভাগ করে নিন। একভাগ দিয়ে একটি চারকোনা বড় রুটি বানিয়ে নিন। রুটি পাতলা করবেন না। এর উপর সস মাখিয়ে মাঝবরাবর লম্বা করে কিমা দিন। কিমার উপর বেশি করে চিজ ছরিয়ে দিন। রুটির একপাশ তুলে এনে কিমা ঢেকে দিন। এবার আরেকপাশ দিয়ে একিভাবে তার উপর টা ঢেকে দিন। ভালো মত মুরিয়ে দুইপ্রান্ত বন্ধ করে দিন। এর উপর আড়ায়াড়ি ভাবে কয়েক জায়গায় চিড়ে দিন। উপরটাতে তেল মাখিয়ে নিয়ে ডিম ব্রাশ করে দিন। একি ভাবে বাকি খামির দিয়ে আরো একটি স্ট্রম্বলি বানান এবার কিছু অরিগানো ছিটিয়ে দিয়ে প্রিহিটেড ওভেন এ ১৯০ডিগ্রী সেলসিয়াস এ২০-২৫ মিনিট বেক করুন। উপরটা সোনালি হয়ে আসলে ওভেন থেকে বের করে ১০ মিনিট পর পরিবেশন করুন।

12112089_141588156193264_3738842399152197067_n copy

ওজন কমানোর বিশেষ রেসিপি

ওজনটা বেশ কয়েক কেজি কম করতে চান? তাহলে আপনার জন্যই আজ রইলো একটি বিশেষ রেসিপি। দারুণ মজাদার এই খাবারটি লাঞ্চ ও ডিনারের পরিবর্তে খান দিনে দুই বেলা। অল্প কয়েকদিনেই দেখবেন ওজনটা কমে শরীর একদম ঝরঝরে হয়ে গেছে। আর ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাইলে ডিনারের বদলে খান এই স্যুপটি। এতে ক্যালোরি খুব সামান্য, অথচ পেট ভরা রাখে বহুক্ষণ। নানান পুষ্টি উপাদান আছে বিধায় আপনিও থাকবেন সুন্দর।

উপকরণঃ

  • চিকেন/ভেজিটেবল স্টক ১ কাপ
  • সিদ্ধ নুডুলস ১/২ কাপ
  • সিদ্ধ সবজি পছন্দ মত
  • রশুন কুচি
  • লেবুর রস ২ টেবিল চামচ
  • সিদ্ধ ডিম ১ টা
  • অল্প ধনিয়া পাতা
  • কুচি লেমন গ্রাস স্টিক ( থাই পাতা )কয়েকটা
  • লবণ স্বাদ মত
  • অল্প অলিভঅয়েল

প্রণালি:
এই স্যুপের প্রধান উপকরণ হল চিকেন/ভেজিটেবল স্টক। এর জন্য ৩ কাপ পানিতে ২ কাপ পরিমান মুরগির হাড্ডি (মাংশ সহ নিতে পারেন, হাড্ডি গুলো একটু ছেঁচে দেবেন), পেয়াজ টুকরো, রশুন কয়েক কোয়া, আদা টুকরা, আস্ত গোলমরিচ, অল্প লবণ দিয়ে কম আঁচে রান্না করুন কম্পখে ১ ঘণ্টা। পানিটা শুকিয়ে ১ কাপ এর আরেকটু বেশি থাকা অবস্তায় নামিয়ে নিন। শুধু পানিটা ছেঁকে নেবেন। (বাকি রয়ে যাওয়া মাংস আপনি অন্য যেকোনো খাবারে ব্যবহার করতে পারবেন। ভেজিটেবল স্টকও একই ভাবে বানাতে পারেন।) এবার একটা হাড়িতে ১ কাপ স্টক দিন। সাথে সিদ্ধ সবজি, রশুন কুচি, লেবুর রস, ধনিয়া পাতা কুচি, লেমন গ্রাস স্টিক (থাই পাতা ), লবণ দিয়ে ৫ মিনিট রান্না করুন। এরপর সিদ্ধ নুডুলস দিয়ে রান্না করুন আরও ২ মিনিট। ব্যাস, তৈরি আপনার স্যুপ। -নামিয়ে বাটিতে নিয়ে উপরে হাল্কা অলিভ অয়েল ছিটিয়ে দিন। (অলিভ ওয়েল হজম ক্ষমতা বাড়ায়) উপরে সিদ্ধ ডিম আর টালা গোল মরিচ দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন এই স্যুপ।

151 copy