মুহাম্মদের (সা.) যে কথায় কাঁপলো আবু জাহেল

ইবনে ইসহাক বলেন, আরাসের এক ব্যক্তি কিছু উঠ নিয়ে মক্কায় এলেন। আবু জাহেল তার উঠগুলো ক্রয় করে। ওই ব্যক্তি পাওনা দাবি করলে আবু জাহেল তালবাহান শুরু করে। Continue reading “মুহাম্মদের (সা.) যে কথায় কাঁপলো আবু জাহেল”

কথায় আছে ফলের রাজা আম | কিন্তু জানেন কি? বেশিমাত্রায় আম খেলে শরীরের জন্য ক্ষতি!

কথায় আছে ফলের রাজা আম | কিন্তু জানেন কি? বেশিমাত্রায় আম খেলে শরীরের জন্য ক্ষতি!

কথায় আছে ফলের রাজা আম। আর গরমকালে আম না খেলে আত্মার শান্তি তো হবেই না। তা চাটনি হিসেবে টক আম হোক বা পাকা আম। আম মানেই তৃপ্তি! কিন্তু জানেন কি? জিভকে কন্ট্রোল করতে না পারলে, মানে একটু বেশিমাত্রায় আম খেলে হতে পারে শরীরের ক্ষতি!

চিকিৎসক জানিয়েছেন, পাকা আম খাওয়া ভালো, তবে খুব বেশি খাওয়া ঠিক নয়। পাকা আমে রয়েছে নানা ভিটামিন। যেমন, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি, থায়ামিন, রিবোফ্লাভিন, ভিটামিন এ বা বিটা ক্যারোটিন। আবার রয়েছে উচ্চমাত্রার চিনি, কার্বোহাইড্রেড ও গ্লাইসেমিক। তাছাড়া পাকা আমে ফিনোলিকস জাতীয় উপাদান থাকার কারণে তা অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের ভালো উৎস।

কথায় আছে ফলের রাজা আম | কিন্তু জানেন কি? বেশিমাত্রায় আম খেলে শরীরের জন্য ক্ষতি!
কথায় আছে ফলের রাজা আম | কিন্তু জানেন কি? বেশিমাত্রায় আম খেলে শরীরের জন্য ক্ষতি!

পাকা আমে চিনির পরিমাণ বেশি থাকার ফলেই শরীর খারাপ হওয়ার সম্ভবনা বেড়ে যায়। চিকিৎসকের কথায়, যাদের সুগার রয়েছে, তাঁরা একেবারেই দূরে থাকুন আমের থেকে। কেননা রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বাড়িয়ে আম ক্ষতি করতে পারে শরীরের।

চিকিৎসকের কথায়, যারা অ্যাজমাতে ভুগছেন তাঁরা প্রয়োজনে কম খান আম। কিডনির সমস্যা যাদের রয়েছে তাঁদের পক্ষেও বেশি আম খাওয়া উচিত নয়।

পাকা আম অতিরিক্ত খেলে ওজন বেড়ে যাবে। বেড়ে যাবে রক্তে শর্করার পরিমাণ। রক্তে সুগারের পরিমান ও বেড়ে যাবে। আমের আরও উপাদান হচ্ছে, ফিটোকেমিকেল কম্পাউন্ড তথা গ্যালিক অ্যাসিড, ম্যাঙ্গফেরিন, কোয়ার্নেটিন এবং টেনিন বা কষজাতীয় উপাদান। এ উপাদানগুলো ক্ষতিকর।