জেনে নিন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) কবরের উপর খেজুরের ডাল পুঁতে ছিলেন কেন?

হযরত মুহম্মদ (সাঃ) একদিন দু‘টি কবরের শাস্তি জানতে পেরে একখানা খেজুরের ডাল দুই টুকরা করে দু’টি কবরে গেড়ে দেন। ছাহাবীগণ জিজ্ঞেস করলেন, আপনি এরূপ করলেন কেন? তিনি বললেন, হয়ত ডাল দু’টি শুকানো পর্যন্ত তাদের শাস্তি হালকা হয়ে থাকবে’ (বুখারী, মুসলিম, মিশকাত হা/৩৩৮)। কিন্তু তাদের এ ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। কারণ তাদের শাস্তি হালকা হয়েছিল রাসূল (ছাঃ)-এর বিশেষ সুপারিশের জন্য। কাঁচা ডালের জন্য নয়। যা ছহীহ মুসলিমে জাবের (রাঃ) বর্ণিত হাদীছ দ্বারা প্রমাণিত। কাজেই খেজুরের কাঁচা ডাল বা অন্য কোন কাঁচা ডাল গেড়ে কবরের শাস্তি হালকা হবে বলে ধারণা করা একেবারেই ভ্রান্ত।

কেননা যদি বিষয়টি তাই হত তাহলে তিনি ডালটি চিরে ফেলতেন না। কেননা তাতে তো ডালটি দ্রুত শুকিয়ে যাবার কথা। আসল কারণ ছিল ঐ কবর দু’টিকে ঐ ডাল দ্বারা চিহ্নিত করা যে, তিনি তাদের জন্য সুপারিশ করেছেন (আলবানী, মিশকাত ১/১১০ পৃঃ; দ্রঃ ছালাতুর রাসূল ২৪২ পৃঃ)।

দেখুন | কিশোরীকে গর্তে জ্যান্ত পুঁতে দিলো এক ব্যক্তি (ভিডিও সহ)

দেখুন | কিশোরীকে গর্তে জ্যান্ত পুঁতে দিলো এক ব্যক্তি (ভিডিও সহ)

মামুলি সম্পত্তি নিয়ে বিবাদ। আর তার জেরে এক কিশোরীকে তিন ফুট গর্তে জ্যান্ত পুঁতে দিলো এক ব্যক্তি। ভয়ানক এই ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের সিওয়ান জেলার গোবিন্দপুর গ্রামে।পুলিশ জানিয়েছে, কিশোরীর নাম খুশবু খাতুন (১৯)। এলাকারই ব্যবসায়ী অমিত শাহ খুশবুদের পারিবারিক জায়গার উপর বাড়ি তৈরি করার জন্য চাপ দিচ্ছিল বলে অভিযোগ। কিন্তু খুশবুর বাবা মহাম্মদ আজম আনসারি, অমিত শাহের প্রস্তাব বার বারই ফিরিয়ে দেন। আর এতেই নাকি বেজায় চটে যায় অমিত। ফল ভাল হবে না বলে আনসারিকে হুমকিও দেয় শাহ। অভিযোগ, খুশবুকে একা বাড়িতে পেয়ে, জোর করে টেনে নিয়ে গিয়ে পাশেরই একটি তিন ফুট গর্তে ফেলে মাটি চাপা দিয়ে দেয় অমিত। মেয়েকে বাড়িতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন আনসারি আর তাঁর স্ত্রী। গ্রামবাসীরাও বেরিয়ে পড়েন খুঁজতে। এমন সময় ওই গর্তে মাটি চাপা দেওয়া ঢিবিতে হোঁচট খেয়ে পড়ে যান আনসারি। কী রয়েছে দেখতে গিয়েই আঁতকে ওঠে গোটা গ্রাম। মাটি খুঁড়তেই বেরিয়ে আসে খুশবুর অচৈতন্য দেহ। সঙ্গে সঙ্গে গোটা গ্রামে হইচই পড়ে যায়। খুশবুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ঘটনার পর থেকেই পলাতক ওই ব্যবসায়ী। তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

ভিডিওঃ-