অন্তসত্ত্বা ১৪ বছরের স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

সিরাজগঞ্জে আট মাসের অন্তসত্ত্বা স্ত্রী সাথী খাতুন (১৪) নামক এক নারী কে শ্বাসরোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন নিহতের স্বামী আতিকুর রহমান।

বুধবার(২১জুলাই) দুপুরে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেট আদালতে ১৬৪ ধারায় সাথী খাতুনকে শ্বাসরোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেন আতিকুর রহমান।

পুলিশ জানায়, নিহত সাথীর সঙ্গে স্বামী আতিকুর রহমানের বিয়ের আগের সম্পর্ক টা ছিলো চাচাতো ভাই বোনের সম্পর্ক এবং এক পর্যায়ে চাচাতো ভাই আতিকুর রহমানের সঙ্গে সাথীর সম্পর্ক টা হয়ে যায় প্রেমের সম্পর্ক।

দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল তাদের। এক পর্যায়ে তারই জের ধরে তাদের প্রেমের সম্পর্কটা দাঁড়ায় শারীরিক সম্পর্কে।

এক পর্যায়ে সাথী ৬ মাসের অন্তস্বত্বা হয়ে পড়লে আতিকুর রহমানের পরিবার সাথীর পেটের বাচ্চা নষ্ট করার অনেক চেষ্টা করেন। যদিও তারা একই পরিবারের এজন্য বাচ্চা নষ্টের বিষয়টা ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় সাথীর শারীরিক এবং বয়সের কথা চিন্তা করে বাচ্চা নষ্ট করা সম্ভব হয়নি।

এরই মধ্যে সাথীর সাথে আতিকুর রহমানের প্রেম শারীরিক সম্পর্ক আবার সাথীর পেটে বাচ্চা এ বিষয়টি জানাজানি হয়ে পড়ায় তাদের পরিবার ও স্থানীয় লোকজন তাদের বিয়ে দিয়ে দেয়।

পরবর্তীতে নিজের চাচাতো ভাই আতিকুর রহমানের সঙ্গে এক মাস ৭ দিন সংসার করার পর হঠাৎ সাথীর মৃত্যু হয়।

এবং সাথী নিজে আত্নহত্যা করেছে বলে বিষয়টি এভাবেই পরিচালনা করা হয়। সাথীর বাবা তার মেয়ে আত্নহত্যা করেছে এ বিষয়টি মানতে পারিনি কোনোভাবেই।

তার মেয়ে সাথীকে হত্যা করা হয়েছে ভেবে ২০জুলাই সাথীর বাবা সাগর হোসেন মুন্সি নিজে বাদী হয়ে আতিকুর রহমানকে প্রধান আসামী করে এছাড়া আতিকুর রহমানের মা মাজেদা বেগম বাবা কামরুজ্জামান ও ভাই আরিফুর জামানকে আসামী করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অন্তসত্ত্বা গৃহবধূ সাথীর মৃত্যু রহস্যজনক মনে হওয়ায় দুপুরে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

মামলা হওয়ায় এবং ঘটনাটি সন্দেহ জনক হওয়ায় আতিকুর রহমান তার মা মাজেদা বেগম ও বাবা কামরুজামানকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে হত্যার রহস্য বের হয়ে আসে।

উল্লেখ্য এর আগে সোমবার (১৯ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে সদর উপজেলার রতনকান্দি ইউনিয়নের গজারিয়া গ্রামে রহস্যজনক মৃত্যু হয় সাথীর। তার স্বামী এবং শশুরবাড়ীর লোকজন এটাকে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করে। খবর পেয়ে পুলিশ ওই দিন দুপুরে ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জে জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠান।

রিপোর্ট২৪বিডি/এইচ এম এম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

BengaliEnglish