কঠোর লকডাউন এ বিয়ে: ম্যাজিস্ট্রেট দেখে খাবার রেখেই দৌড়ে পালাল বরযাত্রী

সারাদেশে ঈদের পর চলমান ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন। এর মধ্যেই খুব ভালোভাবেই নেত্রকোনা জেলার পাহাড়ি সীমান্তবর্তী উপজেলা দুর্গাপুরে কঠোর লকডাউন এ বিয়ে এর অনুষ্ঠান চলছিল। ঠিক সেই সময়েই বিয়ে বাড়িতে এসে উপস্থিত হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা।

তাদেরকে দেখে বিয়ে বাড়ির বরযাত্রীসহ দাওয়াতে আমন্ত্রিত আত্মীয়-স্বজনেরা তাদের খাবার ফেলে রেখেয় দৌড়ে পালিয়ে যান। সোমবার (২৬ জুলাই) বিকেলে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজীব উল আহসান গোপন কিছু তথ্যের উপর ভিত্তি করে চরমোক্তারপাড়া এলাকায় একটি বিয়ে বাড়িতে অভিযান চালান।

এ সময় করোনাকালীন ৫ই আগষ্ট পর্যন্ত দেওয়া কঠোর লকডাউন এ সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জনসমাগম নিয়ে বিয়ের আয়োজন করায় বিয়ের আয়োজনকারীদের গুনতে হয় ৫ হাজার টাকা জরিমানা।

জানা যায়, সোমবার চলমান এই লকডাউন এর মধ্যে প্রায় ২০০ জন মানুষের খাবারের আয়োজন করে মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠান শুরু করেন।

অনুষ্ঠানে বরযাত্রীসহ আত্মীয় স্বজনদের সকলের মধ্যে কেউই কোনো প্রকার স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই খাওয়া-দাওয়া ও আনন্দ হুল্লোড় করতে থাকে। তবে মুহূর্তের মধ্যে প্রশাসনের উপস্থিতিতে যে যার মতো খাবার দাবার সহ অন্যান্য সকল কিছু ফেলে শুধু পালাতে থাকে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীব উল আহসান বলেন, ৫ই আগস্ট পর্যন্ত চলমান এই কঠোর লকডাউনে সব প্রকার জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। রাজনৈতিক সভা, বিয়ে, ধর্মীয় অনুষ্ঠানসহ মানুষের জনসমাগম সংঘটিত হয় এমন সব স্থানেই এ নিষেধাজ্ঞার আওতায়। তবে যারাই এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জনসমাগম করার চেষ্টা করছেন আমরা তাৎক্ষণিক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে জরিমানার আওতায় আনছি।

ঠিক যেমন আজকে গোপন তথ্যের উপর ভিত্তি দিয়ে একটি বিয়ে বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আয়োজকদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্টে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রিপোর্ট২৪বিডি/এইচ এ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *